শিরোনাম
ইংল্যান্ডকে কাঁদিয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়ন স্পেন *** কোটা আন্দোলনকারীদের বিক্ষোভে ছাত্রলীগের হামলা *** বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেক দল, অস্ট্রেলিয়া শাখার উদ্যোগে ঈদ পুনর্মিলনী ও পরিচিতি সভা *** শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪৩ তম শাহাদাত বার্ষিকী পালন করল অস্ট্রেলিয়া বিএনপি *** শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎবার্ষিকী পালন করেছে বিএনপি অস্ট্রেলিয়া ***




↠নিজস্ব প্রতিবেদক


৫ জুন, ২০২৩

আন্তর্জাতিক › রাজনীতি

মন্তব্য:০

News Picture

চিত্র:প্রেসিডেন্ট এরদোগান| |ক্রেডিট : ইন্টারনেট

ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিলেন এরদোগান

প্রথম ভাষণে এরদোগান সব নাগরিকের মধ্যে ঐক্য ও ভ্রাতৃত্বের বন্ধন তুলে ধরে বলেন, সবার রাজনৈতিক মতাদর্শ এবং জাতিসত্তাকে শ্রদ্ধা করতে হবে। তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় পার্লামেন্টে শনিবার তার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দেশটির জাতীয় টেলিভিশন অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করে। শপথে এরদোগান বলেন, আমি প্রেসিডেন্ট হিসাবে মহান তুর্কি জাতি ও এর ইতিহাসের সামনে আমার সম্মান ও সততার, রাষ্ট্রের অস্তিত্ব ও স্বাধীনতা রক্ষার শপথ করছি। তিনি আরও বলেন, আমি সংবিধান, আইনের শাসন, গণতন্ত্র, আতাতুর্কের নীতি ও সংস্কার এবং ধর্মনিরপেক্ষ প্রজাতন্ত্রের নীতি মেনে চলব। এরপরই প্রেসিডেন্ট প্যালেসে এক জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেখানে বেশ কয়েকজন রাষ্ট্রীয় নেতা উপস্থিত ছিলেন। প্রেসিডেন্ট প্যালেসে জমকালো অনুষ্ঠানে অতিথিদের স্বাগত জানান এরদোগান ও তার স্ত্রী এমিনে এরদোগান। নতুন মন্ত্রিসভা ঘোষণা: সাবেক প্রধান অর্থনৈতিক কর্মকর্তা মেহমেত সিমসেককে এরদোগানের নতুন মন্ত্রিসভায় অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তুরস্কের ভাইস প্রেসিডেন্ট হয়েছেন সেভডেত ইলমাজ। ১৮ সদস্যের মন্ত্রিসভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান হাকান ফিদান। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন আলী ইয়ারলিকায়া। অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন মেহমেত সিমসেক। প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন ইয়াসার গুলার, তিনি তুরস্কের চিফ অব জেনারেল স্টাফ জেনারেল। শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন ইউসুফ তেকিন। আইনমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন ইলমাজ তুনশি। পরিবার ও সমাজসেবামন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন মাহিনুর ওজদেমি। যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন ওসমান আসকিন। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন ফাহরেত্তিন কোচা, তিনি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়া সিমসেক যখন ২০০৯ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে তুরস্কের অর্থমন্ত্রী ও উপপ্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন তখন তিনি দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীদের কাছে বেশ জনপ্রিয় ছিলেন। এখন তার মূল ভ‚মিকা হতে পারে, বছরের পর বছর ধরে চলা নীতি থেকে বের হয়ে এসে উচ্চ মুদ্রাস্ফীতি সত্ত্বেও সুদের হার কমিয়ে আনা ও বাজারের নিয়ন্ত্রণ রাষ্ট্রের হাতে নিয়ে আসা।





মন্তব্য